সুনামগঞ্জে লকডাউনে যৌথ বাহিনীর বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক ও মার্কেট পরিদর্শন

সুনামগঞ্জে লকডাউনে যৌথ বাহিনীর বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক ও মার্কেট পরিদর্শন

মো. শাহীন আলম, সুনামগঞ্জ::
করোনাভাইরাস জনিত রোগ কোভিড-১৯ এর বিস্তার রোধ কল্পে সার্বিক কার্যাবলী ও চলাচলে বিধি নিষেধ আরোপ এবং জন সচেতনতার লক্ষে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে বৃহস্পতিবার (১ জুলাই) সকাল ১০টায় যৌথ বাহিনীর এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভা শেষে যৌথ বাহিনী সুনামগঞ্জ শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক ও মার্কেট পরিদর্শন করেন এবং জনগনকে সরকার ঘোষিত লকডাউন মেনে চলার আহ্বান জানান।
জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর হোসেনের সভাপতিত্বে সভায় উপস্থিত ছিলেন সেনাবাহিনীর লেঃ কর্ণেল মাহবুব, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মিজানুর রহমান বিপিএম, ২৮ বিজিবির অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল তছলিম এহসান পিএসসি, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সার্বিক বিজন কুমার সিংহ, র‌্যাব ৯ সুনামগঞ্জ সিপিসি কমান্ডার সিঞ্চন আহমেদ, আনসার কমান্ডার মোঃ সাজ্জাদ হোসেন, এন এস আই যুগ্ম পরিচালক ডঃ মোঃ রফিকুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ জয়নাল আবেদীন, সুনামগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইমরান শাহরিয়ার, এনডিসি রিফাতুল হক সহ জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার গণ। সভা শেষে উপস্থিত গণমাধ্যম কর্মীদের এক ব্রিফিংয়ে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, ১ জুলাই হতে ৭ জুলাই সরকার সারা দেশে কঠোর লকডাউন ঘোষনা করেছে। এ সময় যে কেউ বিনা প্রয়োজনে ঘর থেকে বের হতে পারবেন না। যদি বিশেষ প্রয়োজনে বের হন অবশ্যই মাস্ক পরিধান করে বের হবেন। নিত্য প্রয়োজনীয় দোকান ছাড়া বাকী সব কিছু বন্ধ থাকবে। এসব আইন কেউ অমান্য করলে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।
জেলা প্রশাসক আরও বলেন, সাত দিনের এই লকডাউনে কর্মজীবি মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়বে আমরা তাদের তালিকা ইতিমধ্যেই করে ফেলেছি তাদের অদ্যই সরকারী সহায়তার আওতায় নিয়ে আসা হবে। জেলা প্রশাসনের তরফ থেকে ইতিমধ্যে জেলার ১১টি উপজেলায় এক কোটি ১১ লাখ টাকা গত এক সপ্তাহ আগে থেকেই দিয়ে রাখা হয়েছে। জেলা প্রশাসনের হাতে প্রচুর পরিমান চাল, ডালসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী মজুত রয়েছে বলেও তিনি জানান। বিজিবির অধিনায়ক তসলিম এহসান বলেন, সুনামগঞ্জ জেলার সব কয়টি সীমান্ত এলাকায় বিজিবির কড়া পাহাড়া রয়েছে কোন ভাবেই সীমান্ত পার হয়ে আসা যাওয়ার কোন সুযোগ নেই। পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মিজানুর রহমান বিপিএম বলেন, পুলিশ সার্বক্ষণিক সতর্ক অবস্থানের মধ্যে আছে আইন অমান্য করলে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেয়া হবে।
অপর দিকে জামালগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিশ্বজিত দেব, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) রেদুয়ানুল হালিম ও জামালগঞ্জ থানার অফিসার ইন-চার্জ মোহাম্মদ সাইফুল আলম, উপজেলার বিভিন্ন হাটবাজারে সরকারী বিধিনিষেধ কার্যকরে মাঠে নেমেছেন। ইতো মধ্যে বিধি নিষেধ অমান্যকারী গাড়ি চালকদের জরিমানাসহ সতর্ক করেছেন বলে জানা গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.