সাতক্ষীরায় করোনা প্রতিরোধে লকডাউনের পঞ্চমদিনে প্রশাসনের ব্যাপক তৎপরতা

সাতক্ষীরায় করোনা প্রতিরোধে লকডাউনের পঞ্চমদিনে প্রশাসনের ব্যাপক তৎপরতা

নাজমুল হাসান:  ভারত বাংলাদেশ সীমান্ত জেলা সাতক্ষীরায় লকডাউনের মধ্যেও করোনা সংক্রমন ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় ১ শ ৮৭ জনের করোনা পরীক্ষা শেষে ১ শ ০৩ জন ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়েছেন। যা শনাক্তের হার ৫৫ দশমিক ০৮ শতাংশ।

এ নিয়ে জেলায় গত মঙ্গলবার পর্যন্ত করোনা শনাক্ত হয়েছেন মোট ১ হাজার ৯ শ ৮৯ জন। আর ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন মোট ৪৮ জন।

এদিকে, করোনার উপসর্গ নিয়ে সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা গেছেন এক নারী ও আপন দুই সহোদরসহ আরো ৫ জন। এ নিয়ে করোনার উপসর্গ নিয়ে জেলায় মারা গেছেন আরো অন্ততঃ ২ শ ৩২ জন।

মৃত ব্যক্তিরা হলেন কালিগঞ্জ উপজেলার নলতার নোয়াপাড়া গ্রামের মনিরা খাতুন, দেবহাটা উপজেলার বদরতলা গ্রামের সুশংক, শ্যামনগর উপজেলার পাতাখালী গ্রামের আপন দুই ভাই তোহা কামাল ও শোয়েব খান এবং সদর উপজেলার হাওয়ালখালীর আবুল হোসেন।

সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসন করোনা প্রতিরোধে সাতদিনের কঠোর লকডাউনের ঘোষনা দেন। আজ লকডাউনের পঞ্চমদিনে চলমান করোনা প্রতিরোধে পুলিশ ও প্রশাসনের ব্যাপক তৎপরতা লক্ষণীয়।

তবে বেলা ১২ টা থেকে প্রশাসনের অভিযান চলমান থাকলেও প্রতিদিন ভোর হতে বেলা ১২ টা পর্যন্ত তৃণমূল পর্যায়ে হাট বাজার, চায়ের দোকান, হোটেল-রেস্তরা আর গুরুত্বপূর্ণ মোড়ে স্বাস্থ্যবিধি না মেনে ব্যাপক ভীড় দেখা যায়।

সচেতন মহলে এবিষয় নিয়ে নানান প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। সরকার ঘোষিত লকডাউন মানতে আরও কঠোর হওয়ার বিকল্প নেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published.