যশোরের কুয়াদায় “স” মিল থেকে ৫০ হাজার টাকা মূল্যের চেরাইকৃত কাঠ জব্দ

যশোরের কুয়াদায় “স” মিল থেকে ৫০ হাজার টাকা মূল্যের চেরাইকৃত কাঠ জব্দ

স্টাফ রিপোর্টারঃ

যশােরের কুয়াদায় স’ মিল থেকে ৫০ হাজার টাকা মূল্যের চেরাইকৃত জেলা
পরিষদের কাঠ জব্দ করা হয়েছে।
রােববার সকালে কুয়াদা বাজারের দক্ষিণ মাথায় আব্দুল খালেকের ‘স’
মিলে এ ঘটনাটি ঘটেছে ।

জানা যায়, যশােরের মণিরামপুর উপজেলার ভােজগাতী ইউনিয়নের জামজামি গ্রামের মৃত নুর আলী
সরদাররে ছেলে ভােজগাতী ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক ও জেলা পরিষদের সার্ভেয়ার আল-আমিন
শনিবার বিকালে ১ টি মেহগনি কাঠ “স” মিলে রেখে যায় । রােববার কাঠটি “স” মিলে চেরাইকৃত অবস্থায়
জনগণের হাতে ধরা পড়ে। এ সময় জেলা পরিষদের সার্ভেয়ার এম এ মনজু কে অবহতি করা হলে ঘটনাস্থলে এসে আনুমানিক ১২ সেপ্টি চেরাইকৃত কাঠ জব্দ করে জেলা পরিষদে নিয়ে যায় । এ ঘটনায় এলাকায় তােলপাড় সৃষ্টি হয়েছে । প্রশ্ন উঠেছে, এই ধুরন্ধর ব্যক্তির খুঁটির জোর কোথায় ?
এ বিষয়ে ইউপি
চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাকের কাছে মােবাইল ফোনে জানতে চাইলে তিনি বলেন, জেলা পরিষদের সার্ভেয়ার আল-আমিন’র কাছ থেকে ৯ হাজার টাকায় কাঠটি ক্রয় করি এবং এই কাঠের কোন প্রকার
সমস্যা হলে সে দায়ভার বহন করিবে বলে তিনি জানান। বিষয়টি নিয়ে “স” মিল মালিক আব্দুল খালেকের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, রােববার সকালে ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক’র নির্দেশে
এ কাঠ আমরা চেরাই করি।
এ ঘটনায় জেলা পরিষদের সার্ভেয়ার আল-আমিন’র কাছে মােবাইল ফোনে জানতে চাইলে তিনি জানান, আমার কাছ থেকে জোর পূর্বক হুমকি-ধামকি এ কাঠটি দিয়ে ভােজগাতী
ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক ছিনিয়ে নিয়েছেন। আমি তার কাছে এ কাঠটি বিক্রি করিনি ।
এ ব্যাপারে জেলা পরিষদের সার্ভেয়ার এম.এ মনজু বলেন, আমি পরিষদে গিয়ে চেয়ারম্যানকে না পেয়ে
তাকে ফোন করে জানিয়েছি।
এ ঘটনায় মামলা হবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন ।

বিএম মিলন,স্টাফ রিপোর্টারঃ
মোবাঃ ০১৭৩৬-৫০০৫০৪

Leave a Reply

Your email address will not be published.