নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্য নিয়ন্ত্রণে রাখতে পাইকারী ও খুচরা বাজারে ভোক্তা অধিদপ্তরের অভিযান।

নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্য নিয়ন্ত্রণে রাখতে পাইকারী ও খুচরা বাজারে ভোক্তা অধিদপ্তরের অভিযান।

১৮ এপ্রিল ২০২১:
বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর কর্তৃক ঢাকা মহানগরসহ বিভিন্ন জেলা ও উপজেলাতে বাজার অভিযান পরিচালিত হয়। অভিযানে নিত্যপণ্যের মূল্য যৌক্তিক ও স্থিতিশীল রাখতে এবং ভোক্তা ও ব্যবসায়ীদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে বাজারে পণ্য ক্রয়-বিক্রয় করতে সতর্ক করে অধিদপ্তরের অভিযান পরিচালনাকারী টিম। বাজারে মাস্ক ব্যবহার ও সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার জন্য হ্যান্ড মাইকে সচেতন করা হয়। করোনা থেকে সুরক্ষার জন্য অধিদপ্তরের পক্ষ হতে ব্যবসায়ী ও ভোক্তা তথা জনসাধারণের মধ্যে মাস্ক বিতরণ করা হয়।

ঢাকা মহানগরীর যাত্রাবাড়ী পাইকারী বাজার, কুতুবখালী বাজার, মালিবাগ বাজার, উত্তরা বি ডি আর বাজার, মিরপুর ৬ নং বাজার,বনানী বাজার, খিলগাঁও তালতলা বাজারসহ বিভিন্ন সুপারশপ ও ফার্মেসীতে অভিযান পরিচালনা করেন প্রধান কার্যালয়ের উপপরিচালক জনাব বিকাশ চন্দ্র দাস, ঢাকা জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক আব্দুল জব্বার মন্ডল, প্রধান কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক জনাব প্রনব কুমার প্রামানিক ও ঢাকা বিভাগীয় কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক জনাব মাগফুর রহমান । এছাড়াও ঢাকার বাইরে বিভাগীয় কার্যালয়ের উপপরিচালক ও জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালকের নেতৃত্বে বিভিন্ন বাজারে তদারকি ও সচেতনতামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়।

এছাড়া ঢাকা মহানগরের বিভিন্ন বাজারে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়
কর্তৃক পরিচালিত মোবাইল টিমের সাথে বাজার তদারকি করেন অধিদপ্তরের প্রধান কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক জনাব রজবী নাহার রজনী, ঢাকা বিভাগীয় কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক জনাব রোজিনা সুলতানা ও জনাব মাহমুদা আক্তার।

তদারকিকালে কাঁচা সবজি, ভোজ্যতেল, চাল, পেঁয়াজ, ছোলা,চিনি, খেজুর, স্যানিটাইজার ও মাস্কসহ অন্যান্য নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য যৌক্তিক মূল্যে বিক্রয় হচ্ছে কিনা তা মনিটরিং করা হয়। এছাড়া পণ্যের মূল্য তালিকা প্রদর্শন না করা, মূল্য তালিকার সাথে বিক্রয় রশিদের গরমিল, পণ্যের ক্রয় রসিদ সংরক্ষণ না করা, অনিবন্ধিত ঔষধ, মেয়াদ উত্তীর্ণ ঔষধ ও পণ্য, নকল মাস্ক -স্যানিটাইজার, ওজনে কারচুপিসহ ভোক্তাস্বার্থ বিরোধী বিভিন্ন অপরাধে সারাদেশে ৮০ টি প্রতিষ্ঠানকে ৩,২৭,৫০০/- টাকা জরিমানা আরোপ ও আদায় করা হয়।

এছাড়াও ঢাকাসহ সারাদেশে টিসিবি কর্তৃক সাশ্রয়ী মূল্যের পণ্য বিক্রয় কার্যক্রম (ট্রাক সেল) তদারকি করা হয়।

এ প্রসঙ্গে অধিদপ্তরের মহাপরিচালক জনাব বাবলু কুমার সাহা বলেন, দেশে নিত্যপণ্যের মজুদ পর্যাপ্ত এবং সরবরাহ স্বাভাবিক রয়েছে।কাজেই নিত্যপণ্যের মূল্যবৃদ্ধির কোন কারন নেই। বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এবং অধিদপ্তরের মনিটরিং টিম নিয়মিতভাবেই বিভিন্ন পাইকারী ও খুচরা বাজারে তদারকি করছে।
পবিত্র রমজান ও করোনাকালে সকল ব্যবসায়ীদেরকে যৌক্তিক ও সহনীয় মূল্যে পণ্য বিক্রয় করতে এবং সরকার নির্দেশিত স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে সংশ্লিষ্ট সকলকে আহবান জানান তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.