দায়িত্বরত ট্রাফিক পুলিশকে ভর্ৎসনা করে লাইভ, তথা কথিত ভুয়া ‘সাংবাদিক’ আটক।

দায়িত্বরত ট্রাফিক পুলিশকে ভর্ৎসনা করে লাইভ, তথা কথিত ভুয়া ‘সাংবাদিক’ আটক।

অনলাইন ডেস্কঃ মোটরসাইকেল আটকের পর ট্রাফিক পুলিশকে ভর্ৎসনা করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে লাইভ করা ভুয়া ‘সাংবাদিক’ ফয়ছল কাদিরকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-৯,মঙ্গলবার (১৩ জুলাই) মধ্যরাতে সিলেট সদর উপজেলার পীরের বাজার থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে জানান র‌্যাব-৯ এর এসএসপি সামিউল আলম।

জানা যায়, লকডাউন চলাকালে গত ৯ জুলাই নিজের কাগজপত্রবিহীন মোটরসাইকেল আটক করায় ক্ষুৃব্ধ হয়ে ফেইসবুক লাইভ করেন ফয়ছল কাদির (৪০) নামের এক ব্যক্তি, লাইভে তিনি নিজেকে একটি ফেইসবুক টিভিসহ একাধিক তথাকথিত গণমাধ্যমের সাংবাদিক বলে পরিচয় দেন।

ফেইসবুকে লাইভে অশোভন আচরণ করা ও ট্রাফিক পুলিশকে ভর্ৎসনা করার ঘটনায় রবিবার (১১ জুলাই) রাতে সিলেট নগরের শাহপরান থানায় ফয়ছল কাদিরের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের করেন সিলেট মহানগর পুলিশের ট্রাফিক বিভাগের সার্জেন্ট মো. নুরুল আফসার ভূইয়া,এরপর থেকে তাকে গ্রেপ্তারের অভিযান চালাচ্ছিলো পুলিশ,এরমধ্যে র‌্যাব তাকে গ্রেপ্তার করে।

ফয়ছল কাদির ‘পৃথিবীর কণ্ঠ (পিকে) টিভি’ নামে ফেইসবুক ভিত্তিক একটি পেজ পরিচালনা করেন, ফেসবুকে নিজেকে পিকে টিভির সম্পাদক ও মাতৃজগত নামের একটি পত্রিকা সিলেট ব্যুরো প্রধান হিসেবে দাবি করেছেন ফয়ছল।

যত্রতত্র ফেইসবুক পেইজ খুলে লাইভে সাংবাদিক পরিচয় দেয়ার বিষয়ে ইলেকট্রনিক মিডিয়া জার্নালিস্টস অ্যাসোসিয়েশন (ইমজা) সিলেটের সভাপতি বাপ্পা ঘোষ চৌধুরী বলেন, ‘সিটিজেন জার্নালিজমকে নিরুৎসাহিত করার কিছু নেই। সোশ্যাল মিডিয়ার কল্যাণে এটির এখন ব্যাপক প্রসারও ঘটেছে, তবে যারা সিটিজেন জার্নালিজম করেন, তাদের বুঝতে হবে কী প্রচার করা যায় এবং কী প্রচার করা যাবে না,এইটুকু শিক্ষা, নৈতিকতাবোধ না থাকলে এসব করা অনুচিত। তাতে হিতে বিপরীত হবে।’

পুলিশ জানায়, লকডাউন চলাকালে গত ৯ জুলাই বিকেলে সিলেট-তামাবিল সড়কের সুরমা গেট এলাকায় তিন আরোহী নিয়ে চলা একটি মোটরসাইকেল আটক করে পুলিশ, ফয়ছল কাদির এই মোটরসাইকেলটি চালাচ্ছিলেন। এসময় তার মাথায় হেলমেট ছিলো না। আটকের পর তিনি মোটরসাইকেলের কাগজপত্র এবং নিজের ড্রাইভিং লাইসেন্সও দেখাতে পারিনি।

ওইদিন ঘটনাস্থলে দায়িত্ব পালন করা এক পুলিশ সদস্য বলেন, মোটরসাইকেল আটকের পর ফয়ছল কাদির নিজেকে ‘সাংবাদিক’ পরিচয় দিয়ে পুলিশের সাথে তর্কে জড়িয়ে পড়েন এবং মোটরসাইকেল ছাড়িয়ে নিতে চান, এতে ব্যর্থ হয়ে তিনি ফেইসবুকে লাইভ করা শুরু করেন লাইভে দায়িত্বরত ট্রাফিক পুলিশের সদস্যকে হেয় করা ও দায়িত্ব পালনে সরাসরি বাধা দেন ওই ভুয়া ‘সাংবাদিক।’

তবে তার মোটাসাইকেলটি ওইদিন আটক করে নিয়ে আসা হয়েছে বলে জানান এই পুলিশ সদস্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published.