আশুলিয়ায় কূচক্রীমহলের মিথ্যা মামলায় ইউপি সদস্য দিশেহারা

(ক্রাইম নিউজ)

শিল্প এলাকা আশুলিয়ায় ধামসোনা ইউপি ৬ নং ওয়ার্ড এর সদস্য জনাব আবু সাদেক ভূঁইয়ার, বিরুদ্ধে একটি কূচক্রি-মহল বার বার মিথ্যা মামলায় হয়রানি করা হচ্ছে এমন অভিযোগ এনে সংবাদ সন্মেলন করেন, গত ১২/০৪/২১ইং তারিখে শোভা আক্তার নামে এক যুবলীগ নেত্রীকে কেবা কারা মারধর করে।

সেই ঘটনায় আমার ছেলে মনির হোসেন ভুইঁয়া, সেলিম প্রধান, সাইফুল সিকদার, মানিক, সবুজ, সহ অজ্ঞাত ৫/৬ জনকে আসামি করে আশুলিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করে যাহা মিথ্যা ও বানোয়াট একটি মামলা করেন বলে জানান, আবেগ ঝরা কন্ঠে সাদেক ভুইঁয়া আরও বলেন পূর্ব পুরুষ হইতে আমি এবং আমার পরিবারের সবাই বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে বুকে ধারণ করে মানুষের ভালবাসায় অনুপ্রানিত এবং জনগণের ভোটে ধারাবাহিক ভাবে দুই বারের নির্বাচিত সফল ইউপি সদস্য পদে বহাল রয়েছি ।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে নির্লস কাজ করে জনগণের আস্থা অর্জন সহ দীর্ঘ ১০ বছর যাবৎ এলাকার উন্নয়ন ও সাধারণ মানুষের ভাগ্য পরির্বতনে কাজ করে চলেছি ।মানুষের ভালো বাসা আর সহানুভূতি নিয়ে আমি বেঁচে আছি ।

আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে একটি কুচক্রী মহল আমাকে হেয়ও করতে হণ্যে হয়ে উঠেছে । তাদের উদ্দেশ্য আমাকে সরাতে পারলেই নির্বাচন করে মেম্বার হবে সেই জন্যই আমার পূত্রঃসহ আমার কর্মীদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন মিথ্যা মামলা-হামলায় জরিয়ে হয়রানি করে আসছেন।

এলাকা বাসী জানানঃ সোভা আক্তার নামে এই মেয়েটিকে হাতিয়ার করে একটি কুচক্রী মহল তাকে দিয়ে মিথ্যা মামলা সহ বিভিন্ন ভাবে ব্যবহার করে সার্থহাসিলে পায়তারা করে আসছে এ মহলটি। এর আগে নিজেদের সার্থের জন্য উজ্জ্বল শেখের বিরুদ্ধে ও বিভিন্ন মিথ্যা মামলায় ফাঁসিয়ে এলাকা ছাড়া করা হয়েছে তাকে। শুধু তাই নয় যাকে তাকে মামলার হুমকি প্রধান করে শোভা।

বর্তমানে সাদেক ভুইঁয়া ও তার ছেলে মনির হোসেন ভুইঁয়া ও ম্যানেজার মানিক সহ বেশ কিছু কর্মীদের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা সহ একটি মিথ্যা মামলা দায়ের করেছেন, শোভা । ঘটনা স্থানে গেলে জানা যায় এ ঘটনা কেউ দেখেনি কিন্তু শুনেছে। অপর দিকে মামলার বাদীনি সোভাকে জানতে চাইলে তিনি জানায়: সে কারো প্রবচনায় পরে মিথ্যা মামলা দ্বায়ের করে নাই ।

বিবাদি গং পূর্ব পরিকল্পীত ভাবে রাবেয়া স্কুল সংলগ্ন রাস্তার উপরে আবু সাদেক ভূঁইয়ার ছেলে মনির ভুইঁয়ার সামনে তাকে রড দিয়ে আঘাত করে সেলিম নামের এক ব্যক্তি ।

তবে ৩নং আসামী সাইফুল সিকদার ওখানে ছিল না বলেও জানান তিনি, সে দুর থেকে দেখিয়ে দিয়েছে সে জন্যই তার নাম দেওয়া হয়েছে । কিন্তু একটি ফেইসবুক কমেন্টে শোভা লেখেছেন আমি কোন আসামি কে চিনিনা।

তাহলে এদের বিরুদ্ধে মামলা হলো কি ভাবে এবিষয়টি প্রশাসন খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে আশাবাদী ভুক্তভোগীদের।

ঘটনার সত্যতা জানতে আশুলিয়া থানার উপ-পরির্দশক মামুন কবির জানায় সোভা নামে একজন মেয়ে বাদি হয়ে লিখিত অভিযোগ দ্বায়ের করেছে । সঠিক তদন্ত সাপেক্ষ্যে ব্যবস্থা নেওয়া হবে ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.